প্রতিটা কোম্পানীর সাফল্যের পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তাদের কাস্টমার। তাদের (কাস্টমার) সাথে যত বেশি সুসম্পর্ক ও খাতির করা যাবে তত বেশি সাফাল্য অর্জন করবে কোম্পানী। কাস্টমারদের খাতির করে মাত্র দশ বছরে বিশ্বে তৃতীয় মোবাইল প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে নিজেদের অবস্থান করে নিয়েছে চীনা মোবাইল কোম্পানি শাওমি। টেক জায়ান্ট কাস্টমারের কাছে পৌছার জন্য বিজ্ঞাপনে খরচ না করে কাস্টমার খাতির করে খরচ করেছে। এরফলে তাদের মার্কেটিং (বিজ্ঞাপ) বাজেট সেভ হয়েছে আর তা খরচ হয়েছে কাস্টমার খাতির করে।

আপনারা যদি লক্ষ্য করেন দেখবনে সমজাতীয় কোম্পানি গুলোর চেয়ে শাওমির মোবাইলের দাম কম। কারণ তারা বিজ্ঞাপন বাজেট বাঁচিয়ে কাস্টমারের পিছনে খরচ করে। অর্থাৎ পণ্যের দাম কমিয়ে শাওমি ইউজার মিটআপ বা ডিনার ফর দ্য ফ্যানস করে কাস্টমারের ফিডব্যাক নেয় এবং নিজেদের আপডেট করে।

নিজের প্রতিষ্ঠান এগিয়ে নিতে বিজ্ঞাপনে (বুস্ট, স্পন্সর, সেলার কোড ইত্যাদি) ব্যয় কমিয়ে কাস্টমারদের পিছনে খরচ করতে হবে। এতে করে কাস্টমার থেকে প্রয়োজনীয় ফিডব্যাক আসবে, ওয়ার্ড অফ মাউথের প্রচারণা হবে, রিপিট কাস্টমার বাড়বে এবং কাস্টমারের সাথে উদ্যোক্তা তথা প্রতিষ্ঠানের সুসম্পর্ক তৈরি হবে ইত্যাদি।অর্থাৎ উইন উইন সিচুয়েশনে উভয় পক্ষ লাভবান হবে।

আমরা মনে করি, বুস্ট, স্পন্সর, সেলার কোড ইত্যাদির মাধ্যমে কাস্টমার ও বিক্রি একসাথে বাড়ে। বিশেষ করে ই-কমার্স ও নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য এ চিন্তা ঠিক হলেও টেকসই নয়। যদি এ পোস্ট টি পুরাতন কোন ই-কমার্স উদ্যোক্তা পড়ে থাকেন নিশ্চয়ই একমত হবেন। দেশি পণ্যের যেসব উদ্যোক্তারা কাস্টমার মিটআপ করেছেন তারাও একমত হবেন যে, মিটআপে এসে কাস্টমার ফিডব্যাক দেয়, প্রোডাক্ট কিনে রিভিউ দেয় এবং রিপিটও হয়। কিন্তু বুস্ট, স্পন্সর, সেলার কোড ইত্যাদি করে কাস্টমার-বিক্রি বাড়লেও রিভিউ আসে না, কাস্টমার রিপিট হয় না এবং ওয়ার্ড অফ মাউথের প্রচারণা সহ কোনটাই আশানুরূপ হয় না।

টেকসই কাস্টমার বেইসড তৈরি করতে হলে শুরু থেকে কাস্টমার খাতিরে গুরুত্ব দিতে হবে। তাহলে তাদের ফিডব্যাক, রিভিউ, ওয়ার্ড অফ মাউথের প্রচারণা ‍পাওয়া যাবে এবং বার বার কেনাকাটা করবে। রাজিব আহমেদ স্যারের গাইড লাইনে দেশি পণ্যের কিছু উদ্যোক্তা এ পথে হাটছে এবং সমানে এগিয়ে যাচ্ছে। কাস্টমার খাতির একদম শরু থেকে করা শ্রেয় তাহলে উদ্যোক্তা নিজে কাস্টমারদের সথে বসতে পারে এবং ফিডব্যাক নিতে পারে। কোম্পানি নির্দিষ্ট লেভেলে পৌছার পর এমপ্লয়ি দিয়ে এ কাজ গুলো করালে ফলাফল আশানুরূপ নাও হতে পারে।

পোস্ট পড়ে যা বুঝলেন অথবা কাস্টমার খাতির নিয়ে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট বক্সে লিখুন নির্দ্বিধায়।

মোঃ দেলোয়ার হোসেন

By admin